পটুয়াখালীতে দুই ব্যক্তির মৃত্যুর ঘটনায় তিন বাড়ি লকডাউন

প্রকাশিত: 8:07 PM, March 29, 2020
জাগ্রত বাংলাদেশ
নিজস্ব প্রতিবেদক: পটুয়াখালীতে দুই ব্যক্তির মৃত্যুর ঘটনায় পটুয়াখালীতে তিন বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক (ডিসি) মতিউল ইসলাম চৌধুরীর নির্দেশে রোববার দুপুরে সদর থানা পুলিশের সহায়তায় সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার লতিফা জান্নাতি লাল নিশান টানিয়ে ওই বাড়ি দুটি লকডাউন ঘোষণা করেন। তবে ওই পরিবারের মাঝে খাবার সামগ্রী প্রদান করেছে জেলা প্রশাসন।

পটুয়াখালী সদরে থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান জানান, শনিবার পটুয়াখালী জেলা শহরের জেলা কারাগার এলাকায় মাতব্বর বাড়ি এলাকার জনৈক আবদুর রশিদ নামে ৬৫ বছরের এক বৃদ্ধ ভাইরাল হেপাটাইটিসসহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে নিজ বসতঘরে মারা যান।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় স্থানীয়দের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে মৃত ব্যক্তির করোনা সংক্রমণ নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়। শনিবার রাতে আনুষ্ঠানিকভাবে তার দাফন সম্পন্ন হয়। কিন্তু মৃত্যুর ঘটনার পর স্থানীয়দের মাঝে আতংক ছড়িয়ে পরে।

আতঙ্কগ্রস্তরা একাধিকবার পুলিশ প্রশাসনকে করোনা সংক্রান্ত বিধি কার্যকরের জোর দাবি জানান বলে নিশ্চিত করেন সদর থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান। তিনি জানান, স্থানীয়দের দাবি ও পরবর্তীকালে করোনা সংক্রান্ত মেডিকেল রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত জেলা প্রশাসন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

স্থানীয় নাসির মাতব্বর জানান, নিহত ব্যক্তির বাড়ি ভোলার লালমোহনের গ্রামে। তিনি ওই এলাকার মৃত কেরামত আলীর পুত্র।

একই দিনে সদর উপজেলার টাউন বহালগাছিয়া এলাকার মোহম্মদ জাকির হোসেন (৪৫) নামের এক ব্যক্তিকে অসুস্থ অবস্থায় পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা হাসপাতাল থেকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে আইসোলেশনে রাখা হয়। ভর্তির পরপর ওই ব্যক্তি করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এ প্রসঙ্গে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডাক্তার মোহম্মদ বাকির জানান, মৃত জাকির হোসেন শ্বাসকষ্ট, জ্বর ও সর্দি-কাশি নিয়ে শনিবার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল। আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। প্রাথমিকভাবে জাকির হোসেনের মৃত্যুর লক্ষণগুলো করোনা সংক্রান্ত মনে হচ্ছে। তার নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে।

জাকির হোসেনের মৃত্যুর পর তার বাড়ি লকডাউন করেছে জেলা প্রশাসন। একই সঙ্গে নিহত জাকিরের নিজ বাড়ি গলাচিপা উপজেলার বকুলবাড়ি এলাকার বাঁশবাড়িয়া চৌধুরী বাড়িকে লকডাউন করা হয়। মূলত ঢাকা থেকে পটুয়াখালীর বহালগাছিয়া এলাকায় শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে এসে তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় পটুয়াখালীর সিভিল সার্জন ডা. মোহম্মদ জাহাঙ্গীর আলমকে একাধিকবার তার ব্যবহৃত ফোনে কল দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান জানান, দুইটি বাড়িতে মৃত্যুর ঘটনার পর আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় এবং ঝুঁকি এড়াতে প্রাথমিকভাবে তিনটি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।