যশোরে কান ধরানো সেই এসিল্যান্ড প্রত্যাহার

প্রকাশিত: 1:13 PM, March 28, 2020

জাগ্রত বাংলাদেশ

যশোরের মনিরামপুর উপজেলায় দুইজন বয়স্ক ব্যক্তিকে কান ধরে উঠ-বস করানোর ঘটনায় উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসানকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

যশোরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ শফিউল আরিফ বলেন, “মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী ওই কর্মকর্তাকে মনিরামপুর থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া চলছে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব শেখ ইউসুফ হারুন বলেন, “ওই কর্মকর্তা সিনিয়র সিটিজেনের সঙ্গে অমানবিক, বেআইনি ও অকর্মকর্তাসুলভ আচরণ করেছেন। আমরা তাকে প্রত্যাহার করতে ডিসিকে নির্দেশ দিয়েছি। জনপ্রশাসন সচিবের নির্দেশনার পর পরই এসিল্যান্ড সাইয়েমাকে প্রত্যাহার করে যশোর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ন্যস্ত করা হয়।

মহামারী নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রামণ ঠেকাতে অফিস-আদালত বন্ধ রেখে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া সবাইকে ঘরে থাকার আহ্বান জানাচ্ছে সরকার। আর এটা বাস্তবায়ন করতে সেনাবাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে মাঠ প্রশাসন কাজ করছে।

জানা গেছে, বিসিএস ৩৪তম ব্যাচের কর্মকর্তা সাইয়েমা হাসান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগ থেকে পাস করেছেন। কিছুদিন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছেন। বিসিএস পরীক্ষায় চতুর্থ হয়েছিলেন তিনি। তার বাড়ি রাজশাহীতে। করোনাভাইরাস রোধে চলাচল সীমিত রাখার সরকারি আদেশ পালন করতে গিয়ে গতকাল বিকেলে তিনি দুই বৃদ্ধ ভ্যানচালককে কান ধরে ওঠবস করান। স্থিরচিত্র ছাড়াও তাঁর অভিযানের আরেকটি ভিডিও পাওয়া গেছে। ওই ভিডিওতেও তাঁকে কাঁচাবাজারে ঢুকে এক ব্যক্তিকে কান ধরে ওঠবস করাতে দেখা যায়।

উল্লেখ্য, এ মাসের মাঝামাঝি সময়ে কুড়িগ্রামের সাবেক জেলা প্রশাসক ও অধীনস্থ কর্মকর্তারা মধ্যরাতে একজন সাংবাদিকদের বেধড়ক পেটানো ও জেলে ভরে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। এ নিয়েও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তোলপাড় হয়। পরে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রত্যাহার করে তাঁদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করে প্রশাসন। দুই সপ্তাহের মাথায় আবারও প্রশাসনের একজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নিগ্রহের অভিযোগ উঠল।

এদিকে করোনা প্রতিরোধে পুলিশ মহাপরিদর্শক মো. জাবেদ পাটোয়ারী দায়িত্ব পালনের সময় পুলিশ সদস্যদের সাধারণ মানুষের সঙ্গে বিনয়ী, সহিষ্ণু ও পেশাদার আচরণ করার নির্দেশ দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, দেশজুড়ে এখন করোনাভাইরাস প্রতিরোধের ব্যবস্থা চলছে। গত বছরের শেষ দিন চীনের উহানে প্রথমবারের মতো শনাক্ত হয় এ ভাইরাস। ইতোমধ্যেই বিশ্বের অন্তত ১৯৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এই মহামারি। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ হারিয়েছেন আরও ৩ হাজার ২৭২ জন। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ২৭ হাজার ৩৪০ জনে। বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৫ লাখ ৯৬ হাজার ৭২৩ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৬৪ হাজার ৪৮৬ জন। আক্রান্তদের মধ্যে ১ লাখ ৩৩ হাজার ৩৩৫ জন সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন।

বাংলাদেশে প্রাণসংহারী ভাইরাসটি গত ৮ মার্চ শনাক্ত করা হয় বলে। এরপর আরও ৩৫ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। তাদের মধ্যে ডাক্তার নার্সও আছেন। আক্রান্তদের মধ্যে ৫ জন মারা গেছেন। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১১ জন।