ব্রি ধান ৯২ এর বৈশিষ্ট্য ও চাষাবাদ পদ্ধতি

প্রকাশিত: 7:41 PM, December 21, 2019

জাগ্রত বাংলাদেশ

ব্রি ধান- ৯২ হলো ২০১৯ সালে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট কতৃক উদ্ভাবিত উচ্চ ফলনশীল বোরো ধানের নতুন জাত । ব্রি ধান ৯২ এর জীবনকাল ব্রি ধান ২৯ এর জীবনকালের চেয়ে ২-৩ দিন কম কিন্তু ফলন বেশি। ফলন বেশি ও জীবনকাল কম হওয়ায় যেসব এলাকায় ব্রি ধান ২৯ চাষাবাদ করা হয় সেসব এলাকাতে সহজেই ব্রি ধান ৯২ চাষ করা যাবে।

জাতের বৈশিষ্ট্যঃ

  • এই জাতের ধান গাছের কাণ্ড শক্ত বিধায় ঢলে পড়ে না।
  • পূর্ণ বয়স্ক গাছের উচ্চতা ১০৭ সেমি হয়ে থাকে।
  • দানা লম্বা ও চিকন।
  • পাতা হাললা সবুজ। ডিগপাতা খাড়া এবং ব্রি ধান ২৯ এর চেয়ে শক্ত।
  • ধান পাকার সময় কাণ্ড ও পাতা সবুজ থাকে।
  • এই জাতের ১০০০ টি পুষ্ট ধানের ওজন প্রায় ২৩.৪ গ্রাম।
  • এ ধানে অ্যামাইলোজের পরিমাণ ২৬%।
  • এ জাতের জীবনকাল ব্রি ধান ২৯ এর চেয়ে ২-৩ দিন আগাম।

এ জাতের বিশেষ প্রয়োজনীয়তাঃ ব্রি ধান ৯২ তুলনামুলক কম পানিতে ব্রি ধান ২৯ এর সমান ফলন দিতে সক্ষম।

জীবনকালঃ ব্রি ধান ৯২ এর জীবনকাল ১৫৬-১৬০ দিন।

চাষাবাদ পদ্ধতিঃ এ ধানের চাষাবাদ অন্যান্য উফশী বোরো ধানের মতোই। তবে এটি সেচ নির্ভর চাষাবাদ এলাকার জন্য উপযোগী।

  • বীজতলায় বীজ বপনঃ বীজ বপনের উপযুক্ত সময় ১ নভেম্বর থেকে ১৫ নভেম্বর অর্থাৎ ১৬ কার্তিক থেকে ৩০ কার্তিক।
  • বীজতলায় বীজের পরিমাণঃ প্রতি বর্গমিটার বেডে ৮০-১০০ গ্রাম অঙ্কুরিত বীজ বেডের উপর সমানভাবে বুনে দিতে হবে। এছাড়া প্রতি হেক্টরে ২০ কেজি বীজ লাগে।
  • চারার বয়স ও রোপণ দূরত্বঃ এ জাতের ধানের ক্ষেত্রে ৪০-৪৫ দিন বয়সের চারা ২০X ২০ সেমি দূরে দূরে রোপণ করতে হবে।
  • চারা রোপণ ও চারার সংখ্যাঃ চারা ১৫ ই ডিসেম্বর থেকে ১৩ ই জানুয়ারি অর্থাৎ ১ পৌষ থেকে ৩০ পৌষ পর্যন্ত রোপণ করা যাবে। প্রতি গোছায় ২-৩ টি করে চারা রোপণ করতে হবে।
  • সার ব্যবস্থাপনাঃ ( কেজি/বিঘা ) নিম্নে বর্ণিত সারের পরিমাণ অনুযায়ী জমিতে সার প্রয়োগ করতে হবে।