এসডিজি বাস্তবায়নে যুবসমাজকে সম্পৃক্তকরণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার: যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত: 8:10 PM, November 28, 2019

জাগ্রত বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট বাস্তবায়নে যুবদের অংশগ্রহন নিশ্চিত করতে কাজ করছে সরকার বলে জানিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জনাব মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল এম পি।

তিনি আজ বুধবার (২৭ নভেম্বর) রাজধানীর যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) বাস্তবায়নে যুবদের অংশগ্রহন শীর্ষক দিনব্যাপী কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন।

উক্ত কর্মশালায় যুব ও ক্রীড়া সচিব জনাব মোঃ আখতার হোসেনের সভাপতিত্বে মুখ্য আলোচকের বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এস ডি জি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক জনাব আবুল কালাম আজাদ।  বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব জনাব নাসির উদ্দীন ইউসুফ ও ব্যারিষ্টার নিহাত কবির, সভাপতি, ঢাকা মেট্রো চেম্বার অব কর্মাস।

যুব উন্নয়নে সরকারের গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচির উল্লেখ করতে গিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, যুব সমাজের জন্য বর্তমান সরকার নানামূখী বাস্তবসম্মত কর্মসূচী নিয়েছে। চলতি অর্থ বছরের বাজেটে যুবকদের মধ্যে ব্যবসা উদ্যোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এছাড়াও আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে ৩ কোটি বেকার যুবকের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে সরকার।  ২০৩০ সাল নাগাদ আমরা বিদ্যমান ২৮ শতাংশ বেকারত্বের হারকে  কমিয়ে ৩ শতাংশে নামিয়ে আনার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করেছি। যা এসডিজি বাস্তবায়নে সহায়ক হবে। বেকার যুবকদের উদ্বুদ্ধকরণ, প্রশিক্ষণ, ঋণ প্রদান, আত্মকর্মী হিসাবে তৈরী করতে প্রতিটি উপজেলায় যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মানের উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। গত ১০ বছরে ১১ জেলায় যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছে। ২৪ লক্ষ তরুণ-তরুণীকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। এ কার্যক্রমকে আরো সম্প্রসারিত করার লক্ষ্যে প্রতি উপজেলায় যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

এছাড়াও প্রতিমন্ত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ক্যারিশম্যাটিক নেতৃত্বের প্রশংসা করে বলেন, গত এক দশকে বাংলাদেশের বিস্ময়কর অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। কৃষি, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ ও অবকাঠামোগত উন্নয়নে দৃষ্টান্ত স্হাপিত হয়েছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব জনাব নাসির উদ্দীন বলেন, যুবকদের বদলে দেবার শক্তি আছে।   সাহস আছে।  তাই তাদের অবশ্যই প্রশিক্ষনের এ উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় টেকসই উন্নয়নে যুবদের সম্পৃক্ত করার যে কর্মপরিকল্পনা গ্রহন করেছে তা প্রশংসনীয়। তিনি আরও বলেন আমি বিশ্বাস করি জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সোনার বাংলা গড়তে পারে আমাদের যুবসমাজ।  তিনি সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে বলেন উন্নয়নের কর্মযজ্ঞ সবাইকে শরীক হতে হবে। আর এ কর্মকাণ্ডকে এগিয়ে নিতে অনুঘটকের ভূমিকা পালন করতে পারে যুবকরাই। তিনি মানুষের মনোজগতে ইতিবাচক পরিবর্তনের আহবান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে যুব ও ক্রীড়া সচিব কর্মশালায় অংশগ্রহনকারী সকলকে ধন্যবাদ জানান। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এ কর্মশালা থেকে প্রাপ্ত সুপারিশসমূহ এসডিজি বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

এ কর্মশালায় দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আগত যুব সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ অংশ গ্রহণ করেন।